সমুদ্রে ভয়ংকর তিমির মুখ থেকে কিভাবে বেঁচে আসলো যাত্রীরা | ভিডিও দেখুন

বিদেশে যারা থাকেন তাদের সমুদ্রে ভ্রমন করা প্রায় প্রতিদিনের অভ্যাস। কখনো ক্রুস শিপে, কখনো জাহাজে, কখনো আবার বোটে। আমরা মূলত সমুদ্রে ভ্রমনে যাই আনন্দ পাওয়ার জন্য। অবসর সময় উপভোগ করার জন্য। কিন্তু ভাগ্য খারাপ হলে সেই আনন্দের ভ্রমন হতে পারে ভয়ংকর। সমুদ্রের অস্বাভাবিক উত্তাল ঢেউ অনেক সময় আমাদের যাত্রাকে উপভোগের পরিবর্তে ভয়ের কারন হয়ে থাকে। হতে পারে যান্ত্রিক ত্রুটি। ভাগ্য খারাপ হলে এর বাইরেও কখনো কখনো আমাদের সেই সমুদ্রে ভ্রমন মৃত্যুর কারনও হতে পারে।

সমুদ্রে ভয়ংকর তিমি

ধরুন আপনি ছোট একটি মোটর বোটে সংক্ষিপ্ত সমুদ্রে ভ্রমনে বন্ধুদের সাথে বের হলেন। সমুদ্রের একটু গভীরে যাওয়ার আপনার স্পীডবোটের মটর বন্ধ হয়ে গেল। হঠাৎ দেখলেন বিশাল আকারের কয়েকটি তিমি আপনার স্পীডবোটকে ঘিরে ফেলেছে। তারা আপনার সামনেই তাদের বিশাল মুখ খুলে তাকিয়ে আছে। আবার আপনার বোটের নিচ দিয়ে আসা যাওয়া করতেছে। কেমন লাগবে আপনার। অ্যাডভেঞ্চার নাকি মৃত্যুর ভয়। ভাগ্য ভাল হলে সেটা হবে অ্যাডভেঞ্চার আর ভাগ্য খারাপ হলে সেটা হবে মৃত্যুর কারন।

তেমনই এক ভয়ংকর বাস্তবতার সামনে পড়েছিলেন যুক্তরাজ্যের একটি পরিবার। সমুদ্রের মাঝে, চোখের সামনের ভয়ংকর তিমির মুখের গর্জন, ছোট বোটকে নাড়িয়ে দেয়া, বোটের নিচ দিয়ে তিমির আসা যাওয়া। তারা এতটাই ভয় পেলেন যে বাড়িতে ফোন দিয়ে বললেন আর মনে হয় বেঁচে ফিরতে পারবেন না। তারা ভেবেছিলো তিমিগুলো চলে যাবে। কিন্তু যাচ্ছে না। স্পীডবোটের মটরও চালু করতে পারছিলো না তিমির কারনে। অবশেষে ভাগ্য ভাল হওয়ায় তিমি গুলো একটু পাশে সরে গেলে তারা দ্রুত মটর চালু করে পালায়ন করলেন। পালায়ন অবস্থাও একটি তিমি তাদেরকে ধাওয়া করেছিলো।

ভয়ংকর সেই ভিডিওটি দেখতে চান? এই লিংক এ ক্লিক করুন

Check Also

বাংলাদেশে মাত্র ১১ টাকায় স্মার্টফোন

এবার বাংলাদেশে মাত্র ১১ টাকায় স্মার্টফোন!

সংবাদ মাধ্যমে প্রায়ই ভারতের বাজারে বিশেষ প্যাকেজের আওতায় সীমিত সংখ্যক ক্রেতাদের জন্য মাত্র কয়েকটাকায় স্মার্টফোন …

Leave a Reply