ফিটনেসে আশরাফুলের এত উন্নতি! আসছেন কি তাহলে জাতীয় দলে?

আসছে সামনের জাতীয় লিগের আগে দলের প্রতিটি খেলোয়াড়ের ফিটনেস পরীক্ষা নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি। আজ সকালে সেটির অংশ হিসেবেই ঢাকা মহানগরের ক্রিকেটাররা ফিটনেস টেস্ট দিয়েছেন। সেখানে অনেক ভালো করেছেন জাতীয় দলের একসময়ের প্রধান আকর্ষন মোহাম্মদ আশরাফুল। এক কথায় অসাধারণ পারফর্মেন্স করেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল আজ তার ফিটনেস পরীক্ষায়।

ফিটনেসে আশরাফুলের এত উন্নতি

জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের ফিটনেস কিংবা স্কিল নিয়ে ভালোভাবে কাজ করা কঠিন। কারন জাতীয় দলের বাইরে থাকলে বিসিবির সুযোগ-সুবিধা সব সময় মেলে না। সেই হিসেবে আশরাফুলের জন্য তো তা আরও কঠিন ছিলো। গত পাঁচ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টিতে নিষিদ্ধ ছিলেন ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অপরাধে। যার ফলে দীর্ঘদিন তাঁকে ফিটনেস ও স্কিল নিয়ে কাজ করতে হয়েছে একান্ত ব্যক্তিগত উদ্যোগে। এছাড়াও গত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের পর তিনি প্রায় পাঁচ মাস প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট থেকে দূর আছেন। এরপরও আশরাফুলের ফিটনেস এত ভালো।

লম্বা বিরতির পর হঠাৎ এরকম ফিটনেস টেস্টে ভালো স্কোর করা মোটেও সহজ ছিলো না। মোহাম্মাদ আশরাফুলের জন্য কাজটা আরও কঠিন ছিলো। কারন ভোজনরসিক হিসেবে তার যথেষ্ট ‘খ্যাতি’ আছে ! তাহলে কীভাবে এই ফিটনেস উন্নতি আনলেন তিনি তা আজ দুপুরে টুডে ট্রিবিউনকে বলেছেন মোহাম্মাদ আশরাফুল, ‘গত তিন মাস ধরে আমি প্রস্তুতি নিচ্ছি সামনের জাতীয় লিগ খেলব বলে। আমি আমার সব চেষ্টা দিয়েই চেয়েছি যেন আমার ফিটনেস আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মানের হয়। এটা ধরে নিয়েছিলাম যে মানসিকভাবে আমাকে অনেক শক্তিশালী হতে হয়, অনুশীলনও করতে হবে ফিটনেস নিয়ে । ভাত খাওয়াটা গত তিন মাসে একেবারে কমিয়ে দিয়েছিলাম। এটা মনে করি নি যে শুধুমাত্র ডায়েট করলেই হবে। ফিটনেস যদি আমি আমার কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ে নিতে চাই তাহলে সেভাবেই আমাকে অনুশীলন করতে হবে। সবজি ও অন্যান্য ফ্যাট্মুক্ত খাবার খাচ্ছি সঙ্গে জিম-রানিং করছি । যদিও আমি খেতে অনেক পছন্দ করি, তবে এবার আমি অনেক নিয়ন্ত্রণ করেছি। যার ফলাফল আজকের এই ফিটনেস টেষ্ট ফলাফল’

তাকে জাতীয় দলের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তার উত্তর ছিলো এরকম যে, তার ইচ্ছে আবার জাতীয় দলে খেলার। তিনি সেই লক্ষ্যেই চেষ্টা করে যাচ্ছেন। দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

Check Also

PaTuAkHali Ryderz

পটুয়াখালী রাইডার্সের ৫ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর জমকালো উদযাপন

“Think Safe Ride Safe Be Safe” এই স্লোগান নিয়ে দেশের দক্ষিন অঞ্চলের সর্ববৃহৎ বাইক স্যান্ড …

Leave a Reply